শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ০১:৫২ অপরাহ্ন

Notice :
*** দৈনিক দেশরত্ন পত্রিকায় সারাদেশে সংবাদ দাতা নিয়োগ চলছে।। সৎ-সাহসী ও নতুন তরুণ তরুণী দের অগ্রাধিকার দেয়া হবে।। আগ্রহীগণ যোগাযোগ করুন।। *** মোঃ শাহিনুর ইসলাম শাহিন ডাকঘরঃ করিমপুর( ৫৫২০) উপজেলাঃ কালীগঞ্জ জেলাঃ লালমনিরহাট   ০১৭১৭৭৪৪৯০৬ *** রূপসী বাংলা হোটেল & রূপসী ট্রেডার্স চাপরহাট বাজার  কালীগঞ্জ লালমনিরহাট  প্রোঃ জামাল হোসেন খোকন।   *** পুপুলার থাই এ্যালুমিনিয়াম কালীগঞ্জ বাস ষ্টান্ড সংলগ্ন প্রোঃ আরাফাত হাসান ০১৭৮৬৭৬৮২৫৮   *** ডাউয়াবাডী বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ও অটিস্টিক বিদ্যালয়। হাতিবান্ধা লালমনিরহাট
News Headline :
যশোরের মণিরামপুরে চাঞ্চল্যকর রফি হত্যাকান্ডে ৫ চরমপন্থী সদস্য বন্দুক-কার্তুজসহ আটক ঝিকরগাছায় উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সহ-সভাপতির মৃত্যুতে —সাবেক এমপি মনিরুল ইসলাম মনিরের শোক হাতীবান্ধায় নির্মম হত্যাকান্ড জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে মাদকসেবী ধরতে গিয়ে নদীতে ঝাঁপ, র‌্যাব কর্মকর্তার মৃত্যু। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার প্রদানের উদ্বোধন করেন মোতাহার হোসেন এম.পি অসুস্থ পৃথিবী রমজান আল সিয়াম পানিবন্দী মানুষের মাঝে ত্রাণ প্রদানের উদ্বোধন করেন মোতাহার হোসেন এম.পি এমপি মহিব্বুর রহমান এর পক্ষে তার ব্যক্তিগত সহকারী তরিকুল ইসলামের শিশুদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ। মুজিববর্ষের আহ্বান তিনটি করে গাছ লাগান” কর্মসূচি বাস্তবায়নে জাককানইবি শাখা ছাত্রলীগের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক সুব্রত কুমার চক্রবর্তী টুটুল। পাটকেলঘাটায় কৃষকের গলাকাটা লাশ উদ্ধার।
‘তাজহাট জমিদার বাড়ি রংপুর’

‘তাজহাট জমিদার বাড়ি রংপুর’

ইসবাহ্-উল-মওলা(সূর্য)

তাজহাট জমিদার বাড়ি দেখতে হলে রংপুর বিভাগীয় শহর থেকে প্রায় ৬ কিলোমিটার দূরে মাহিগঞ্জের তাজহাট গ্রামে যেতে হবে। অষ্টাদশ শতাব্দীর শেষ ভাগে রত্ন ব্যবসায়ী মান্নালাল ব্যবসায়িক কারণে মাহিগঞ্জে এসে বসবাস এবং পরবর্তীতে তাজহাট জমিদারির প্রতিষ্ঠাতা করেন। জমিদার মান্নালাল মারা যাবার পর তাঁর দত্তক পুত্র গোপাল লাল রায় বাহাদুর জমিদারি পরিচালনা শুরু করেন। বিংশ শতাব্দীর শুরুতে প্রায় ২০০০ রাজমিস্ত্রির নিরলস পরিশ্রমে বর্তমান তাজহাট জমিদার বাড়ি পূর্ণতা লাভ করে। ১৯১৭ সালে সম্পূর্ণ হওয়া এই জমিদার বাড়িটি নির্মাণ করতে তৎকালীন সময়ে প্রায় দেড় কোটি টাকা খরচ হয়।

তাজহাট জমিদার বাড়ির চত্বরে রয়েছে গাছের সারি, বিশাল মাঠ এবং প্রাসাদের দুই পাশে আছে দুইটি পুকুর। আর আছে বিভিন্ন রকম ফুল ও মেহগনি, কামিনী, আম এবং কাঁঠাল বাগান। জমিদার বাড়িটি দেখতে ঢাকার আহসান মঞ্জিলের মতো। লাল ইট, শ্বেত ও চুনা পাথর দ্বারা নির্মিত চারতলা বিশিষ্ট তাজহাট জমিদার বাড়ির তৃতীয় ও চতুর্থ তলায় জমিদার গোপালের ব্যবহৃত বিভিন্ন জিনিস রাখা আছে। এছাড়া রয়েছে থাকার কক্ষ, গোসলখানা ও অতিথিদের জন্য কক্ষ। প্রায় ২১০ ফুট প্রস্থের প্রাচীন মুঘল স্থাপত্যের অনুকরণে নির্মিত তাজহাট জমিদার বাড়িতে ইতালীয় মার্বেল পাথরে তৈরী ৩১ টি সিঁড়ি আছে। রাজবাড়ীর পেছনদিকে রয়েছে গুপ্ত সিঁড়ি পথ, যা বর্তমানে বন্ধ রয়েছে।

১৯৯৫ সালে বাংলাদেশ প্রত্নতত্ত্ব বিভাগ তাজহাট জমিদার বাড়িকে সংরক্ষিত স্থাপনা হিসেবে নথিভুক্ত করে এবং ২০০৫ সালে রংপুর জাদুঘরকে তাজহাট জমিদার বাড়ির দ্বিতীয় তলায় স্থানান্তরিত করে। জাদুঘরের প্রদর্শনী কক্ষে দশম ও একাদশ শতাব্দীর বেশকিছু টেরাকোটা শিল্পকর্ম স্থান পেয়েছে। এছাড়াও জাদুঘরে সংরক্ষিত রয়েছে মুঘল সম্রাট আওরাঙ্গজেবের সময়ের কুরআন, মহাভারত ও রামায়ণসহ বেশকিছু আরবি এবং সংস্কৃত ভাষায় লেখা প্রাচীন পাণ্ডুলিপি। কাল পাথরের বিষ্ণুর প্রতিকৃতি ছাড়াও জাদুঘরে প্রায় ৩০০ টি মূল্যবান নিদর্শন রয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email
সংবাদ টি শেয়ার করুন:





© 2019 Daily Desh Ratno. All rights reserved.
Design BY PopularHostBD