সোমবার , ৬ জুন ২০২২ | ২০শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  1. অপরাধ প্রতিদিন
  2. আন্তর্জাতিক
  3. আরো
  4. এক্সক্লুসিভ
  5. কৃষি ও প্রকৃতি
  6. খেলাধুলা
  7. দেশজুড়ে
  8. ধর্ম
  9. পদ্মা সেতু
  10. ফিচার
  11. বাংলাদেশ
  12. বিনোদন
  13. রাজধানী
  14. লাইফস্টাইল
  15. শিক্ষাঙ্গন

শত শত বাড়ি পুড়িয়ে দিচ্ছে মিয়ানমারের সেনারা

প্রতিবেদক
স্টাফ রিপোর্টার
জুন ৬, ২০২২ ৬:৫১ পূর্বাহ্ণ

মিয়ানমারের সেনারা গত তিন সপ্তাহে কিন, আপার কিন ও কে তুয়াং গ্রামের শত শত বাড়ি পুড়ি দিয়েছে। স্থানীয় বাসিন্দারা বিষয়টি জানানোর পাশাপাশি বিশ্বের বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে বিষয়টি এটি উঠে এসেছে।

গত বছর সাগাইং অঞ্চলে অভ্যুত্থানের পর থেকে স্থানীয় পিপলস ডিফেন্স ফোর্স (পিডিএফ) সদস্যদের সঙ্গে প্রতিনিয়ত সংঘর্ষে লিপ্ত হচ্ছে জান্তা সেনারা।

বিশ্লেষকরা বলছেন, অনানুষ্ঠানিক সেনাবাহিনী তাদের কার্যকারিতা দিয়ে বিস্মিত করেছে জান্তা বাহিনীকে এবং সামরিক বাহিনী বহুবার স্থলভাগে তার সৈন্যদের সমর্থন করার জন্য হামলার আহ্বান জানিয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কিন গ্রামের এক বাসিন্দা বলেন, ‘২৬ মে সেনারা আমাদের গ্রামের কাছাকাছি আসার সময় ফাঁকা গুলি করে। এতে গ্রামবাসীরা পালিয়ে যায়। পরের দিন সকালে তারা গ্রাম থেকে যাওয়ার আগ পর্যন্ত ধোঁয়া উঠতে দেখা যায়। এতে দুই শতাধিক বাড়ি পুড়ে গেছে। কংক্রিটের ভিত্তি বাদ দিয়ে আমার পুরো বাড়ি পুড়ে গেছে।’

ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপির এক ড্রোন ফুটেজে দেখা যায়, গ্রামের শত শত বাড়ি পুড়ে চিন্ডউইন নদীর প্রায় আট কিলোমিটার জুড়ে ধোঁয়া উড়ছে। সেখানে দেখা যায় কে তুয়াং গ্রামের একটি ক্লিনিক পুড়ে মাটির সঙ্গে মিশে গেছে।

কে তুয়াং গ্রামের আই তিন (ছদ্মনাম) বলেন, ‘তারা (সেনারা) অভিযান চালায় এবং আমাদের বাড়ি ধ্বংস করে। তারা আমাদের ইঞ্জিনচালিত নৌকাও পুড়িয়ে দেয়। যে নৌকাগুলো্ আমরা যাতায়াত এবং গ্রামে খাবার সরবরাহের কাজ করতাম।’

তিনি বলেন, ‘আমার জীবন শেষ হয়ে গেল। আমি আমার বাড়ি হারিয়ে ফেলেছি। বেঁচে থাকার মতো আমার আর কিছুই রইল না।’

গত সপ্তাহের মার্কিন মহাকাশ সংস্থা নাসার স্যাটেলাইট চিত্রগুলো কে তুয়াং গ্রামের আগুনের চিত্রের সঙ্গে মিলে যায়।

জান্তা সেনারা পূর্বে বাড়ি পুড়িয়ে দেয়ার কথা অস্বীকার করে সন্ত্রাসী পিডিএফ (পানামানিয়ান ডিফেন্স ফোর্স) যোদ্ধাদের অভিযুক্ত করেন।

মিয়ানমার সেনার মুখ্যপাত্র মিন অং হ্লাইং গত মঙ্গলবার বলেন, সন্ত্রাসমূলক কর্মকাণ্ডে পাল্টা হামলায় যতটা সম্ভব হতাহতের সংখ্যা কমিয়ে আনার চেষ্টা করা হয়েছে।

মিয়ানমারের রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম গ্লোবাল নিউ লাইট অনুসারে তিনি বলেছেন, দেশটিতে শান্তি বিরাজ করছে।

সর্বশেষ - দেশজুড়ে