1. niloykhan1@gmail.com : ডেস্ক রিপোর্ট : ডেস্ক রিপোর্ট
  2. mdfarukhossain096@gmail.com : faruk khan : faruk khan
  3. Seikhlekhun321@gmail.com : room news : room news
  4. shahinurislam6246@gmail.com : ডেস্ক রিপোর্ট : ডেস্ক রিপোর্ট
রবিবার, ২২ মে ২০২২, ০৭:২০ পূর্বাহ্ন

ডাক্তার কানিজ মাহমুদা দিশার মহানুভবতায় বেঁচে গেল এক ট্রেন যাত্রীর প্রাণ

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, ২৮ মার্চ, ২০২২
  • ৪৮ Time View

এমরান মাহমুদ প্রত্যয়,নওগাঁ

যাতায়াতের জন্য অনেকেরই প্রথম পছন্দ ট্রেন। কোনো কোনো ট্রেনে যাত্রীর সংখ্যা থাকে হাজারেরও বেশি। কখনো কখনো কেউ অসুস্থ হয়ে পড়ে ট্রেনের ভেতরে। চলন্ত তাৎক্ষণিক চিকিৎসা মেলে না। যাত্রীদের পরের কোনো স্টেশনে নেমে চিকিৎসা নেওয়ার জন্য অপেক্ষা করতে হয়। তাই ট্রেনের যাত্রীদের সেবায় অন্তত একজন করে চিকিৎসক দেওয়া প্রয়োজন।

নাজমা সুলতানা (২৫) নামের এক যাত্রী ২৭ মার্চ পঞ্চগড় যাওয়ার উদ্দেশ্যে
ঢাকা থেকে চিলাহাটিগামী নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনে উঠেন। ওই যাত্রী হঠাৎ ডাইরিয়ায় আক্রান্ত হয়ে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে। তাঁকে সহযোগিতার জন্য ট্রেনে কোনো চিকিৎসক থাকলে সাহায্যে এগিয়ে আসতে মাইকে ঘোষণা দেওয়া হয়। তাৎক্ষণিক একজন চিকিৎসক সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসেন।রোগীর অবস্থা খুবই খারাপ ছিল। খাবার স্যালাইন সহ প্রাথমিক চিকিৎসা দেন চিকিৎসক কানিজ মাহমুদা দিশা।রোগীর অবস্থা খারাপ হতে থাকে কোন জ্ঞান নেই। ট্রেনের আর যাত্রী সহ চিকিৎসকের মুখে চিন্তার ছাপ।পাশের আহসানগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশনে ট্রেন পৌঁছা মাত্র ই রোগীকে নিয়ে ডাক্তার নিজে ছুটেন আত্রাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দিকে।
জরুরি বিভাগে ভর্তি করানো হয় রোগীকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পুরো স্টাফ রোগীকে নিয়ে ব্যস্ত কারন যে ডাক্তার মানবিক সেবায় রোগীকে নিয়ে এসেছেন তিনি আর কেউ নন তিনি হলেন ওই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার।

আত্রাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মেডিকেল অফিসার পদে ৪২ তম বিসিএস ক্যাডারে চিকিৎসক হিসাবে যোগ দেন ডাক্তার কানিজ মাহমুদা দিশা।
তিনি আত্রাই উপজেলার সরকারি মহিলা ডিগ্রি কলেজের সহযোগী অধ্যাপক দীন মোহাম্মদ এর মেয়ে।

চিকিৎসক কানিজ মাহমুদা দিশা বলেন,মুমূর্ষু ওই রোগীকে দেখে আমি একটু হলেও বিচলিত ছিলাম। কি করবো আমি ঢাকা থেকে আসছি। ব্যাগে প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য যা ছিল তা দিয়ে আল্লাহর কাছে সাহায্য চেয়ে আমার চেষ্টা অব্যাহত রেখেছি,আর আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করেছি যেন রোগীটিকে কোন হাসপাতালে নিয়ে যেতে পারি।
একজন চিকিৎসক হিসাবে এটি আমার দায়িত্ব ও কর্তব্য ছিল।
আমি সেটিই পালন করার চেষ্টা করেছি।
রোগীর অবস্থা জানতে চাইলে ডাক্তার কানিজ মাহমুদা দিশা বলেন,আল্লাহর রহমতে রোগী এখন অনেকটা সুস্থ।

ডাক্তার কানিজ মাহমুদা দিশা পিতা অধ্যাপক দীন মোহাম্মদ এর সাথে মোবাইল ফোনে মেয়ে সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন- আমি বাবা হিসেবে সার্থক।শুধু চিকিৎসক হিসাবে নয় একজন সচেতন মানুষ হিসেবে আমার মেয়ে যা করেছে তাতে আমি গর্বিত। সে যেন সারাজীবন মানুষের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রাখে। আমি তার দীর্ঘ জীবন কামনা করছি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
© ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | দৈনিক দেশরত্ন.কম
Develper By ITSadik.Xyz