চাকুরী জাতীয়করণের জন্য বাংলাদেশ লিফ ঐক্য কল্যাণ পরিষদের জাতীয় প্রেসক্লাবে মানববন্ধন ও অনশন

চাকুরী জাতীয়করণের জন্য বাংলাদেশ লিফ ঐক্য কল্যাণ পরিষদের জাতীয় প্রেসক্লাবে মানববন্ধন ও অনশন

মৎস্য অধিদপ্তরের “ইউনিয়ন পর্যায়ে মৎস্য চাষ প্রযুক্তি সেবা সম্প্রসারণ প্রকল্প (২য় পর্যায়) সংশোধিত” এর কর্মরত লিফদের চাকুরী জাতীয়করণসহ ৫ দফা দাবিতে তিন দিন ব্যাপী ঢাকার জাতীয় প্রেসক্লাবে মানববন্ধন ও অনশন কর্মসূচি চলছে।

আজ ২১ সেপ্টেম্বর সকাল ১০ টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এ মানববন্ধন ও অনশন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে এবং আরও ২ দিন চলবে। এতে সারা দেশে ইউনিয়ন পর্যায়ে কর্মরত সকল লিফগণ উপস্থিত ছিলেন। মোঃ সাজু আহমেদ এর সভাপতিত্বে এ কার্যক্রম শুরু করা হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ লিফ ঐক্য কল্যাণ পরিষদের বিপ্লবী সভাপতি জনাব, মোঃ রফিকুল ইসলাম বেলাল, সাধারণ সম্পাদক মোঃ আব্দুর রহমান,সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আব্দুস ছালাম।

মানববন্ধন ও অনশন কর্মসূচিতে আরো উপস্থিত রয়েছেন বাংলাদেশ লিফ ঐক্য কল্যাণ পরিষদের ঢাকা বিভাগের বিভাগীয় সভাপতি কাজী জসিমউদদীন, সম্পাদক জীবনান্দ দেবনাথ। রংপুর বিভাগের বিভাগীয় সভাপতি মোঃ ফরিদুল ইসলাম, সম্পাদক মোঃ জাহাঙ্গীর আলম। রাজশাহী বিভাগের বিভাগীয় সভাপতি মোঃ সাহাজান আলী সরদার, সম্পাদক মোঃ তোফাজ্জল হোসেন। খুলনা বিভাগের বিভাগীয় সভাপতি মোঃ নুরুন্নবী শেখ, সম্পাদক মোঃ ইকবাল হোসেন। বরিশাল বিভাগের বিভাগীয় সভাপতি মোঃ মহিউদ্দিন আহমেদ, সম্পাদক মোঃ সুমন মিয়া। ময়মনসিংহ বিভাগের বিভাগীয় সভাপতি মোঃ আলতাফ হোসেন, সম্পাদক মোঃ রাজীব মিয়া। চট্টগ্রাম বিভাগের বিভাগীয় সভাপতি মোঃ মোশাররফ হোসেন, সম্পাদক মোঃ নজরুল ইসলামসহ প্রকল্পের আওতায় প্রায় তিন হাজার লিফগণ উক্ত মানববন্ধন কর্মসূচিতে অংশ গ্রহণ করেন।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ইউনিয়ন পর্যায়ে মৎস্য চাষ প্রযুক্তি সেবা সম্প্রসারণ প্রকল্প (২য় পর্যায়) সংশোধিত লিফগণ ২০০৯ সাল হতে অতি সামান্য বেতন নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। কিন্তু মাছ চাষে বাংলাদেশ বিশ্বের দ্বিতীয় তম দেশ। এর সাফল্যের কারণ আমরা মাঠ পর্যায়ে প্রান্তিক মৎস্য চাষীদের মাছ চাষের আওতায় নিয়ে এসেছি। কিন্তু দুঃখের বিষয় হল আমাদেরকে অতি সামান্য বেতন ভাতা দিয়ে জীবনযাপন করতে হচ্ছে। আমাদের কোন টিএ বিল ও যাতায়াত ভাতা পাইনা। যা পাই তা আমাদের অফিস যাতায়াত করতে খরচ হয়ে যায়। তাই আমরা বাধ্য হয়ে এই মানববন্ধন ও অনশন কর্মসূচি করতে মাঠে নেমেছি।

আরও বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা মানবতার মা আপনাকে অবগত করতে চাই যে, আমরা আজকে মাছ চাষে বিশ্বের মধ্যে দ্বিতীয় হওয়ার পরেও আমাদের কোন মূল্যায়ন নাই। কিন্তু কৃষিতে প্রতি ইউনিয়নে ৩ জন করে মাঠ পর্যায়ে কাজ করছেন। আমাদের এত সফলতার পরেও আমাদের ইউনিয়ন পরিষদে বসার কোন জায়গা নেই। যদি আমাদেরকে প্রতিটি ইউনিয়নে স্থায়ী নিয়োগ দেয়া হয় তাহলে আমরা মাছ উৎপাদনে বিশ্বের মধ্যে ১ম স্থান অর্জন করব ইনশাআল্লাহ। তাই সাংবাদিক ভাইয়েরা তাদের নিজ নিজ মিডিয়ার মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সুদৃষ্টি কামনা করছি। এবং মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী মহোদয়ের সুদৃষ্টি ও সুনজর কামনা করছি।

৫ দফা দাবি সমূহঃ

১। মৎস্য অধিদপ্তরের “ইউনিয়ন পর্যায়ে মৎস্য চাষ প্রযুক্তি সেবা সম্প্রসারণ প্রকল্প (২য় পর্যায়) সংশোধিত” এর কর্মরত লিফদের চাকুরী জাতীয়করণ করতে হবে।

২। জাতীয় বেতন স্কেল ২০১৫ অনুযায়ী সকল লিফদের ১৯ ও ২০ তম গ্রেডে বেতন-ভাতা প্রদান করতে হবে।

৩। ইউনিয়ন পর্যায়ে সম্প্রসারণ পদ সৃষ্টি করে ইউনিয়ন পর্যায়ে সকল লিফ গণকে পদায়ন করতে হবে।

৪। সকল লিফগণকে নিজ নিজ ইউনিয়ন পরিষদে বসার সুব্যবস্থা করতে হবে।

৫।সহকর্মীদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করতে হবে।

এই বিভাগের সর্বশেষ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button